ছবিঃ কণ্ঠ শিল্পী বাবু রঞ্জিত দেওয়ান

বৌদ্ধ ইতিহাসে উল্লেখিত বর্ণনামতে তথাগত গৌতমবুদ্ধ তার শিষ্য সংঘের মধ্যে এক বিশেষ মতানৈক্য লক্ষ্য করলে তা নিরসনের যথাযথ উদ্যোগ নেন। এক পর্যায়ে তিনি পারিলেয়্য নামক গভীর জংগলে অবস্থান শুরু করেন। বনের তির্যক প্রাণীদের মাঝে জেগে ওঠে অপার পূণ্যচেতনা। বুদ্ধের মৈত্রী প্রতিমার প্রতি ভক্তি বিগলিত চিত্তে বনের হরিণ, বানর, হস্তী সহ সবাই পূজা দানের সু্যোগ পায়। এমতাবস্থায় বনের এক বানর বুদ্ধকে মধুদান করে তা বুদ্ধকে ভক্ষণ করতে দেখে আনন্দের আথিশর্যে এগাছ ওগাছ চড়ে আনন্দ

প্রকাশের প্রাক্কালে প্রাণ হারায়, সাথে সাথে সে তির্যক যোনি থেকে মুক্ত হয়ে দেবলোকে উৎপন্ন হয়। এই সত্য স্মরনে বৌদ্ধ মন্ডলে মধু পূর্ণিমা উদযাপিত হয়ে আসছে। গত ১২ সেপ্টম্বর ২১০৪ ইং শুক্রবার বোধিপুর বন বিহারে এ পূর্ণিমা উপলক্ষে বিশেষ কর্মসূচি পালিত হয়। চাকমা গানের কিংবদন্তি, কণ্ঠ শিল্পী বাবু রঞ্জিত দেওয়ান এ অনুষ্ঠানে আতিথ্য গ্রহণ করেন। তিনি ধর্মীয় উন্নয়ন কর্মযজ্ঞকে আরো বেগবান করতে, বনভন্তের স্বপ্ন গাথা পরিপূরণের তাগিদে ত্রিশরণ ফাউন্ডেশনের হাতকে শক্তিশালী করে তোলার জন্য উপস্থিত বৌদ্ধ জনতার উদ্দেশ্যে আহবান জানান।