গেলো ৬,৭,৮ মার্চ (বুধ, বৃহস্পতি, শুক্রবার) ২০১৯ খ্রিঃ তিনদিন ব্যাপী বিস্তারিত কর্মসূচি সহকারে ভদন্ত জিনবোধি মহাথেরর ৪৯তম জন্মদিন সেই সাথে "বন্দুকভাঙ্গা ও আমি" গ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচন। অন্যান্য বছরের ন্যায় এবারেও অত্যন্ত গৌরবের সাথে জাঁকজমক পূর্ণ আয়োজনে ছিলো চোখে পড়ার মতো।

ছবিঃ বন্দুকভাঙ্গা ও আমি বই

মিত ভাষী, নিভৃতচারী ও প্রচার বিমুখ এই সংঘ মনীষার জন্মদিন মানেই উপচেপড়া বৌদ্ধ জনতার সম্মিলন। আনন্দ-উৎসবের মহড়া দান, শীল, ভাবনাময় জীবন আরাধনার বহিঃপ্রকাশ এবং সকল হিংসা, নিন্দা, পরশ্রীকাতরতা তথা মনের সংক্ষীর্ণতার বিপক্ষে সত্য, শুভ ও সুন্দরের আরাধনা।

কেননা ভান্তের জন্মদিন উদ্‌যাপন মানেই বৌদ্ধ সংগীত প্রতিযোগিতা, বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক সম্মেলন, সর্বজন পূজ্য বনভন্তের স্মৃতিচারণ প্রভৃতি শাসন হিতৈষণা মূলক আয়োজনের মঙ্গল-মালায় গ্রথিত এক পূণ্যদীপ্ত শভদিন। অনুষ্ঠানের প্রথম দিনে ছিলো বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা এবং শ্রদ্ধেয় জিনবোধি মহাথেরোর জন্মদিন উদ্‌যাপনী আয়োজনের সূচনা কার্যক্রম। এদিকে রাজবন বিহারের সংঘ ব্যক্তিত্ব শ্রদ্ধেয় শ্রীমৎ জ্ঞানপ্রিয় মহাথের প্রমুখ বিশিষ্ট সদ্ধর্ম দেশকগণ উপস্থিত ছিলেন। ২য় দিনে প্রধান আকর্ষণ ছিলো চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাচ্যভাষা বিভাগের চেয়ারম্যান ড। জিনবোধি মহাথেরর একক সদ্ধর্ম দেশনা।

ছবিঃ টিএফবি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের প্রতিযোগিরা

এ উপলক্ষে সঞ্চয় চাকমার রচিত ও সুরারোপিত উদ্ভোদনী ভক্তিগীতি পূণ্য শংকর চাকমার কন্ঠে পরিবেশিত হয়। ৩য় দিনে শ্রদ্ধেয় জিনবোধি ভান্তের সংকলিত “বন্দুক ভাঙ্গা ও আমি” নামক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন ভন্তের গৃহী মাথা প্রণতি চাকমা ও যথীন্দ্র চাকমা পার্বত্য ভিক্ষুসংঘের সাধারণ সম্পাদক যশস্বী ভিক্ষু ভদন্ত শুভাদর্শী মহাথের এবং ফুরমোন সাধনাতীর্থ আন্তর্জাতিক বনধ্যান কেন্দ্রাধ্যক্ষ বনভন্তের শিষ্যসংঘের দ্বিতীয় প্রধান ভদন্ত ভৃগু মহাথের।

অনুষ্ঠানে পূজনীয় ভন্তেদের পুস্পস্তবক যোগে বরণ পালায় অংশ নেয় রাঙ্গামাটি বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক একাডেমির কচি-কাঁচা শিক্ষার্থী- খুশি, জুঁই, শুভার্থী, অরুনা, তিশা, ত্রিপিক বন্দনা ও বনভন্তের বন্দনায়- চন্দ্র লক্ষী চাকমা, পঞ্চশীল প্রার্থনায় মল্লিকা চাকমা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বোধিপুর বনবিহারে ম্যানেজিং কমিটির সাধারণ সম্পাদক বাবু চন্দ্রলাল চাকমা। অভ্যাগত দায়কদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন বাবু যথীন্দ্র চাকমা।

ছবিঃ পূণ্যশংকর ও লক্ষীদেবী

দানোৎসর্গ ক্রমে অনুষ্ঠানটির দেশনা পরিক্রমায় শ্রদ্ধেয় শুভদর্শী মহাথের সুললিত ব্যঞ্জনযোগে বুদ্ধ দেশিত মৈত্রীভাবনা সম্পর্কে গল্প আকারে আজকের হতাশ বৌদ্ধ জাতির উত্তরণে মৈত্রীর অপরিসীম প্রভাব সম্পর্কে বাস্তব ধর্মী দেশনা প্রদান করেন।

সভা প্রধান শ্রদ্ধেয় ভৃগু মহাথের তাঁর দেশনায় পথভ্রষ্ট দিকভ্রান্ত সমাজ-কাঠামোর উত্তরণে মনস্তাত্বিক পরিবর্তনের ওপর জোর দেন। তিনি আরো বলেন- রাতারাতি এই পরিবর্তন বয়ে আসবে না, এখন সময় সচেতন হয়ে ওঠার।

তিনদিন ব্যাপী অনুষ্ঠিত এই আয়োজনের সমাপনী পর্বে ছিলো বনভান্তে স্মৃতিচারণ রাঙ্গামাটি বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক একাডেমির শিল্পীদের পরিবেশনা ও বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক সম্মেলন। উপস্থাপনা ও পরিচালনায় ছিলেন বোধিধারা সম্পাদক সঞ্চয় চাকমা (বাবু)।

ছবিঃ চন্দ্রলাল চাকমা পুরস্কার তুলে দিচ্ছেন
ছবিঃ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার নাচের দৃশ্য